আসেন ডাইনী বধ করি

বৃহস্পতিবার, জুন ২৭, ২০১৯ ১০:৪৩ PM | বিভাগ : সাম্প্রতিক


সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে গেলে বিচার ঠেকায়ে রাখা কঠিন হয়। অ্যাট লিস্ট গ্রেফতার করতে হয়। এসব ঠেকাতে থানার ওসিরা আজকাল নতুন কিছু কৌশল বের করছে যাতে প্রথমেই এই নষ্ট সমাজের মনোযোগ অন্যদিকে ঘুরায় দেয়া যায়। এজন্য সবচেয়ে ভালো উপায় নারীর চরিত্র সম্পর্কিত বিষয় সামনে আনা। কোনো এক বিখ্যাত হারামজাদা কোনো এক খুনের তদন্ত করতে গিয়া বলছিলো না, 'পিছনের মহিলাটি কোথায়?'

এই হইলো সেই বিখ্যাত ট্রেন্ড যা বাঙালি খুব ভালো জানে। ফলে খুনীদের জন্য তাবৎ সমাজের সহানুভূতি আদায় করাটা এখন প্রথম কাজ। সেই উদ্দেশ্যে বরগুনা থানার ওসি আবির মোহাম্মদ হোসেন প্রথমেই ছড়ায় দিসে নিহত রিফাতের স্ত্রী আয়েশার সাথে খুনী নয়নের সম্পর্ক ছিল। ওসি আবীর এই সমাজ সম্পর্কে সবচেয়ে ভালো জ্ঞান রাখে। ফলে বাতাস কোনদিকে যাইবো, সেইটা তিনি ঠিক জানতেন।

সাথে সাথে বাঙলার আপামর পুরুষ সমাজের ডান্ডা খাড়া হয়া গ্যাসে। তারা মেয়ের ও মেয়েদের চরিত্র নিয়া নানা স্ট্যাটাস প্রসব করতেসে।

নারীর প্রতারণা ও প্রেমের বদলায় খুন- এই কথা তো তাদের শিখায়ে দিয়া গেছেন শাহরুখ খান, জসিম, মান্না ইত্যাদিরা। ফলে তারা এই খুনের যাবতীয় দায় দেবার মতো একটি নারী চরিত্র পেয়ে উল্লাসে ফেটে পড়তেসে।

যে দেশে খুনের পাশে পুলিশ দাঁড়ায়ে থাইকা নাক খুঁটে আর আকাশ দ্যাখে, যে দেশে বিচারের জন্য মানববন্ধনে দাঁড়াইতে হয়, যে দেশে বিচার চাইলে হুমকি দেয়া হয়, যে দেশে আদতে কোনো ঘটনারই বিচার হয় না, সেই দেশে পাবলিক এইসব নিয়াই সন্তষ্ট থাকবে, এতে অবাক হওয়ার কিছু নাই। উন্নত চিকিৎসা না পাইলে লোকে ঝাড় ফুক করে, কবিরাজ দেখায় আর তা না পাইলে কালা আছরের সন্ধান করে। যে কালা আছর কোনো এক ডাইনীর অভিশাপে হইসে। এখন সবাই মিলে সেই ডাইনীরে জীবন্ত পুড়াইলেই বিচার সমাপ্ত হবে।

আসেন ডাইনী বধ করি। বাস্টার্ডস!


  • ২৩৯ বার পড়া হয়েছে

পূর্ববর্তী লেখা পরবর্তী লেখা

বিঃদ্রঃ নারী'তে প্রকাশিত প্রতিটি লেখার বিষয়বস্তু, ক্রিয়া-প্রতিক্রিয়া ও মন্তব্যসমুহ সম্পূর্ণ লেখকের নিজস্ব। প্রকাশিত সকল লেখার বিষয়বস্তু ও মতামত নারী'র সম্পাদকীয় নীতির সাথে সম্পুর্নভাবে মিলে যাবে এমন নয়। লেখকের কোনো লেখার বিষয়বস্তু বা বক্তব্যের যথার্থতার আইনগত বা অন্যকোনো দায় নারী কর্তৃপক্ষ বহন করতে বাধ্য নয়। নারীতে প্রকাশিত কোনো লেখা বিনা অনুমতিতে অন্য কোথাও প্রকাশ কপিরাইট আইনের লংঘন বলে গণ্য হবে।


মন্তব্য টি

লেখক পরিচিতি

শারমিন শামস্

সমাজকর্মী শারমিন একজন ফিল্মমেকার ও সাংবাদিক।

ফেসবুকে আমরা