এভ্রিলেরা কেন স্ট্রাগল করবে

বুধবার, অক্টোবর ৪, ২০১৭ ৫:১৫ AM | বিভাগ : সাম্প্রতিক


- ভাই, বিশ্ব সুন্দরী বাঙলাদেশ প্রতিযোগিতায় এভ্রিলকে বাদ দেয়া হচ্ছে, তাকে নিয়ে কিছু লেখেন।

-- তাই নাকি? বিশ্ব সুন্দরী প্রতিযোগিতা হচ্ছে নাকি? সুন্দরী প্রতিযোগিতা আসলে আমার জন্য ইন্টারেস্টিং সাবজেক্ট না। ঐসব বিষয়ে কিছু না বলাই ভাল।

- কিন্তু এভ্রিলকে বাল্যবিবাহের কারণে মিস ওয়ার্ল্ড প্রতিযোগিতা থেকে অনৈতিকভাবে সরিয়ে দেয়া হচ্ছে।

-- তাহলে উনি তো মিসেস ওয়ার্ল্ড প্রতিযোগিতায় যেতে পারেন। সমস্যা কোথায়?

- শুধু বিয়ে হয়েছে বলে উনাকে এভাবে সরাতে হবে?

-- প্রতিযোগিতাটাই যেহেতু মিস এর, তাই উনি সেই ক্যাটাগরিতেই থাকেন না। বিষয়টা নৈতিকতার। আমি পুরুষ হয়ে মেয়ে সেজে বিশ্ব সুন্দরী প্রতিযোগিতায় গেলেও বিষয়টা একই রকম অনৈতিক হতো। আমি তাই সুন্দরী প্রতিযোগিতায় না গিয়ে সুন্দর প্রতিযোগিতায় যেতে পারি। যেহেতু আমি ছেলে মানুষ। এমনিতেই দুর্নীতির কারণে আমরা অনেক সুনামের অধিকারী। দূর্নীতিকে প্রশ্রয় দেয়ার কারণ দেখি না।


- কিন্তু এভ্রিলের তো অনেক স্ট্রাগল আছে। সেটা দেখবেন না?


-- আমি নিশ্চিত আমাদের বাসার কাজের বুয়া, যিনি ঘরে ঘরে কাজ করে পুরো একটা পরিবার চালান, উনার স্ট্রাগল আরো বেশি। উনাকেও শিশু বয়সে বিয়ে দেয়া হয়েছিল। ৬ টা সন্তানকে পড়ালেখা করান, পঙ্গু স্বামীর চিকিৎসাও। উনি এই পুরষ্কার দাবী করেন নি। কারণ উনি এই প্রতিযোগিতায় নাম লেখান নি। উনাকে আপনি পুরষ্কৃত কেন করছেন না? উনি বাদ গেলে এভ্রিলও যেতে পারে। প্রতিযোগিতা যে বিষয়ে, সেই নিয়ম মেনেই তো যা করার করা উচিত। নিয়ম না মানলে বাদ যাবেন।


- কিন্তু বিষয়টা কেমন হয় গেল না?


-- সুন্দরী প্রতিযোগিতা বিষয়টাই একটা কেমন বিশ্রি বিষয়। গরুছাগলের হাটের মত মেয়েরা স্টেজে উঠবে, শরীর দেখাবে, ন্যাকা ন্যাকা কথা বলবে, বিচারকরা প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পড়া ছাত্রদের উপযুক্ত প্রশ্ন করবে জাতীয় ফুল আর জাতীয় পাখী, একটু ধর্ম আর এক চিমটি মুক্তিযুদ্ধের চেতনা, অল্প একটু শেখ হাসিনা আর মুজিব, এই হয়ে গেল ইন্টিলিজেন্ট সুন্দরী। এইসব হাস্যকর প্রতিযোগিতা দেখলে আমার গা গুলিয়ে বমি আসে।

ব্যক্তিগতভাবে আমি এইসব সুন্দরী প্রতিযোগিতা থেকে অনেক গুরুত্ব দেবো আমাদের দেশের একটি মেয়ে পদার্থ বিজ্ঞানে অবদান রাখলে। বা ভাল লেখক বা কবি হলে। বা মারকুটে গণিতজ্ঞ হলে। সৌন্দর্য্য অবশ্যই সুন্দর, শুধু মেয়ের নয়। ছেলেরও। সৌন্দর্য্য স্মার্টনেস ইন্টিলিজেন্স সবই চমৎকার বিষয়। গরুর হাটের মত স্টেজে উঠে বিচারকদের 'বুক পাছা কোমর মাপা দৃষ্টি'র সামনে দাঁড়ানো আমার বিশেষ পছন্দ নয়। ঘিনঘিনে ব্যাপার।

আমার কাছে নারীর জন্য অমর্যাদাকর মনে হয়। বুক পাছা কোমর আর প্রাথমিক স্কুল লেভেলের সাধারণজ্ঞান সর্বস্ব জীব বলে নারীকে প্রতিষ্ঠা করার এক ইতর চালাকি মনে হয়।

তবে এভ্রিল স্ট্রাগেলিং নারী হয়ে থাকলে বিশ্ব সুন্দরীর চাইতেও বড় খেতাব তিনি এক সময় ছিনিয়ে আনবেন বলেই আমি মনে করি। নৈতিকতার খেতাব, এবং আত্মসম্মানের। আত্মমর্যাদার। উনি যুদ্ধ করে যেতে পারলে ভবিষ্যত উনারই হবে। বিশ্ব সুন্দরী না হতে পেরে উনি থেমে যাবেন না।

আর এখানে খেতাব হারানোতেই থেমে গেলে বোঝা যাবে, উনি আসলে যোগ্যই ছিলেন না।


  • ২৩৯৫ বার পড়া হয়েছে

পূর্ববর্তী লেখা পরবর্তী লেখা

বিঃদ্রঃ নারী'তে প্রকাশিত প্রতিটি লেখার বিষয়বস্তু, ক্রিয়া-প্রতিক্রিয়া ও মন্তব্যসমুহ সম্পূর্ণ লেখকের নিজস্ব। প্রকাশিত সকল লেখার বিষয়বস্তু ও মতামত নারী'র সম্পাদকীয় নীতির সাথে সম্পুর্নভাবে মিলে যাবে এমন নয়। লেখকের কোনো লেখার বিষয়বস্তু বা বক্তব্যের যথার্থতার আইনগত বা অন্যকোনো দায় নারী কর্তৃপক্ষ বহন করতে বাধ্য নয়। নারীতে প্রকাশিত কোনো লেখা বিনা অনুমতিতে অন্য কোথাও প্রকাশ কপিরাইট আইনের লংঘন বলে গণ্য হবে।


মন্তব্য টি

লেখক পরিচিতি

আসিফ মহিউদ্দিন

জার্মান প্রবাসী আসিফ মহিউদ্দীন বাঙলা অন্তর্জালে একজন নিধার্মিক ব্লগার এবং অনলাইন একটিভিস্ট।

ফেসবুকে আমরা