সন্তান নেবার সিদ্ধান্ত হওয়া উচিত দম্পতির নিজের

বৃহস্পতিবার, জানুয়ারী ১১, ২০১৮ ৩:০১ PM | বিভাগ : প্রতিক্রিয়া


সন্তান কি সবাই মিলে গায়ে মাথায় হাত বুলিয়ে বুঝালেই হয়, নাকি দুটো মানুষ যখন মন থেকে একমত হবে হ্যাঁ আমরা এখন প্রস্তুত আমরা এখন সন্তান নিতে চাই তখন তাদের চেষ্টা হয়?

আগের কথা জানি না ভবিষ্যতের ও কি হবে বলতে পারি না কিন্তু যখন থেকে এ ব্যাপারগুলো জানতে এবং বুঝতে শিখেছি তখন থেকেই কোনো ব্যাতিক্রম ছাড়াই নব দম্পতি বা বিয়ে হয়েছে দুই তিন বছর হলো মাত্র এমন সব দম্পতি কে সেই একই ঝামেলা পোহাতে দেখেছি। কোনো বিয়েতে বা আত্নীয়বাড়ী দাওয়াতে গেলে সবাই যখন জড়াজড়ি হয়ে গল্পের আসরে বসে তখন মুখস্থ একটা প্রশ্নই শুনতে হয় নব দম্পতি বা যাদের বিয়ের বেশ কিছু বছর পার হয়েছে, তোমরা বাচ্চা কেনো নিচ্ছো না? নিচ্ছো না নাকি হচ্ছে না? দেরি করো না পরে হবে না। রাগ করো না তোমাদের ভালোর জন্যই বলছি।

আরে বাবা যার বাচ্চা সে নিবে, সময় হলেই নিবে তাতে আপনার কি? যদি তার ভালোর জন্যই বলে থাকেন তবে তার ভালো তাকেই বুঝতে দিন। ভালো মন্দ বোঝার যথেষ্ট বয়স নিশ্চয়ই তাদের হয়েছে? কেনো কোন কথায় কার মনে কি ব্যাথা লাগে।

আমি এমন অনেক দেখেছি যারা বাচ্চার জন্য মাথা ঠুকে মরছে ডাক্তার ঔষধ গুলে খেয়েছে কিন্তু কোনো কাজ হয় নি কারণ কিন্তু লজ্জা এবং ভদ্রতার খাতিরে কিংবা নিজের দুঃখ লুকাতে মানুষগুলো মিথ্যা করেই বলে এইতো নিবো আগে ক্যারিয়ার করি পরে বাচ্চা নিবো বা এখনো এব্যাপারে ভাবছি না যেখানে সত্যটা তার বিপরীত তারা চেষ্টার ত্রুটি করছে না । এইসব মুহুর্তগুলোতে যদি তার কাটা ঘায়ে নুনের ছিটে দিয়ে বলেন বাচ্চা নিচ্ছো না নাকি হচ্ছে না? লাগলে ডাক্তার দেখাও। তখন ব্যাপারটা কেমন হবে বলুন? একবার ভাবুন যে মেয়েগুলো কে এভাবে প্রশ্ম করে বিব্রত করছেন বা মনে কষ্ট দিচ্ছেন সে যদি অন্যের মেয়ে না হয়ে আপনার নাড়ি ছেঁড়া সন্তান হতো তাহলেও কি তাকে এভাবেই ভরা মজলিসে বসে প্রশ্ন করতেন? নিশ্চযই না। তাহলে কেনো অন্যদের বেলায় একবার চিন্তা করেন না আপনার কথাগুলো তার কষ্টের বোঝা বাড়িয়ে দিতে পারে? এসমস্যা শুধু যে মুরব্বি মহলেই যে হয় তা কিন্তু নয় বন্ধু মহলে বসে সবাই আড্ডা দিচ্ছে এমন সময় একজন কথা নেই বার্তা নেই হঠাৎ করে বলে উঠলো দোস্ত তুই কেনো বাচ্চা নিচ্ছিস না? না হলে ডাক্তারের কাছে যা বল এপয়েন্টমেন্ট দিবো? দয়া করে এগুলো বন্ধ করুন আজকাল গুগল করলে সব ইনফরমেশন পাওয়া যায় সো এ নিয়ে আপনার না ভাবলেও চলবে। প্রয়োজন পড়লে সে আপনাকেই জিজ্ঞেস করবে।

এবার আসি বোঝানোর ব্যাপারে,

অনেক পরিবার আছেন মা কিংবা শাশুড়ি নিজেরা সারাদিন কানের কাছে বাচ্চা নাও বাচ্চা নাও করতে থাকে আবার পাড়া প্রতিবেশী বা আত্মীয় যে আসে সবাইকে বলে একটু বুঝাতে যে এখন না নিলে পরে সমস্যা হবে। লাগলে ডাক্তার দেখাতে বলো। কেনো আপনি কি সবজান্তা যে পরে কি হবে বলে দিচ্ছেন? আর ডাক্তারের প্রয়োজন তার আছে কিনা সেটা নিশ্চয়ই তার থেকে ভালো আপনি জানেন না।

শুনুন যে ক্যারিয়ার নিয়ে আছে বা এই মুহূর্তে বাচ্চা নিতে চাইছে না তাকে আপনি বা আপনারা দলবেঁধে বোঝালেও কোনো লাভ হবে না। আবার বলছি-  বাচ্চা কি সবাই মিলে গায়ে মাথায় হাত বুলিয়ে বুঝালেই হয়, নাকি দুটো মানুষ যখন মন থেকে একমত হবে হ্যাঁ আমরা এখন বাচ্চা নিতে চাই তখন তাদের চেষ্টায় হয়?

সব সমস্যার সমাধান আসলে একা নিজের পক্ষে সম্ভব নয়। চেষ্টা থাকতে হয় সবারই। দিন বদলের ধারায় এক পা দু’পা করে বদলাতে হয় হবাইকেই। আসুন আমরা আজ এই এখন থেকেই শুরু করি, প্রতিজ্ঞাবদ্ধ হই, কোনো মানুষ কে প্রশ্ম করে তাকে বিব্রত করার আগে একটু ভেবে নেবো এতে কি সে কষ্ট পেতে পারে? এই মেয়েটার জায়গায় নিজের মেয়ে বা বোন হলে আমি কি কথা বলতাম? আমরা না হয় অন্যকে বলার আগে নিজে একটু ভাবি, তার অবস্থানে নিজেকে একটু রাখি তাহলে হয়তো একটু একটু করে অনেক কিছু বদলাতে শুরু করবে ক্ষতি কি সেই বদলের প্রথম সিঁড়ি যদি আপনি আমি কিংবা আমরা হই?


  • ২৬৪ বার পড়া হয়েছে

পূর্ববর্তী লেখা পরবর্তী লেখা

বিঃদ্রঃ নারী'তে প্রকাশিত প্রতিটি লেখার বিষয়বস্তু, ক্রিয়া-প্রতিক্রিয়া ও মন্তব্যসমুহ সম্পূর্ণ লেখকের নিজস্ব। প্রকাশিত সকল লেখার বিষয়বস্তু ও মতামত নারী'র সম্পাদকীয় নীতির সাথে সম্পুর্নভাবে মিলে যাবে এমন নয়। লেখকের কোনো লেখার বিষয়বস্তু বা বক্তব্যের যথার্থতার আইনগত বা অন্যকোনো দায় নারী কর্তৃপক্ষ বহন করতে বাধ্য নয়। নারীতে প্রকাশিত কোনো লেখা বিনা অনুমতিতে অন্য কোথাও প্রকাশ কপিরাইট আইনের লংঘন বলে গণ্য হবে।


মন্তব্য টি

ফেসবুকে আমরা