আমাদের লিখতে দিন-চ্যালেঞ্জটা গ্রহণ করুন

বুধবার, ফেব্রুয়ারী ২৮, ২০১৮ ২:১৪ PM | বিভাগ : মুক্তচিন্তা


এই দেশে আরজ আলী মাতুব্বরের দর্শনকে সচেতনভাবে অবদমিত করে রাখা হয়েছে বলেই আসিফ নজরুলদের মতো মডারেট মুসলমানদের জন্ম হয়েছে। ঈশ্বর আল্লাকে যদি ‘যুক্তি’ দিয়ে প্রমাণ করা যায় তাহলে ভূত প্রেত রাক্ষস খোক্কসকেও ‘যুক্তি’ দিয়ে প্রমাণিত করা যাবে। পিতামহের বাবাকে না দেখেই বিশ্বাস করছেন অথচ আল্লাকে না দেখে বিশ্বাস করতে পারছেন না- এহেন উদ্ভট হাস্যকর প্রলাপকে ‘যুক্তি’ নাম দিয়ে কোনো অন্ধবিশ্বাসকে শক্তিশালী করা যায় না। তাই আরজ আলী মাতুব্বরকে কেউ খারিজ করার দাবি করলে তারাই হাততালি দিবে যারা আগে থেকে অন্ধভাবে ভূত প্রেত আল্লাহ ভগবানের মতো কুসংস্কারে নিঃশর্ত বিশ্বাস করে বসে আছে।

‘আরজ আলী সমীপে’ নামের বইকে আসিফ নজরুল প্রশংসা করে ফেইসবুকে পোস্ট দিয়েছেন এবং বলছেন ‘যুক্তি’ দিয়ে আরজ আলীকে খন্ডন করার এই পন্থাটা ভালো। মুহাম্মদ পঙ্খিরাজ ঘোড়ায় চড়ে মহাকাশ ভ্রমণ করে এসেছে এটা ‘বিশ্বাস’ করার ব্যাপার, ‘যুক্তি’ নয়। যারা যুক্তি দিয়ে সব রকম অতিপ্রাকৃত ব্যাপারকে নাকচ করে দিতে পারতো তাদের বই বাংলাদেশে এখন অঘোষিতভাবে নিষিদ্ধ। কোনো প্রকাশনীই এ ধরণের বই ছাপতে রাজি নয়। তাদের ভয় দুই দিকে। সরকার নাখোশ হবে। অপরদিকে শান্তিবাদী চাপাতি বাহিনীর হিটলিস্টে নাম চলে যাবে। তাই এক শ্রেণির জাকির নায়েকের ভাবশিষ্যরা এখন ‘যুক্তি’ দিয়ে জিব্রাইল, নবী, মিরাজ ইত্যাদিকে ‘বৈজ্ঞানিকভাবে’ প্রমাণিত করতে খালি মাঠে গোল দিয়ে বেড়াচ্ছে। বিশ্বাসের ভাইরাসের মতো বইয়ের একটি কপিও এখন বাংলাদেশের কোথাও বিক্রি করতে দেখা যায় না। নবী মুহাম্মদের ২৩ বছর বইটি উঠিয়ে নেয়া হয়েছে কারণ এসব বই থাকলে প্যারাডক্সিক্যাল সাজিদ, আরজ আলী সমীপে’র মতো বই কি করে একলা বগল বাজাবে?

ফেইসবুকের মুক্তচিন্তার লেখকদের তথ্য চেয়ে সরকার ফেইসবুকের কাছে আবেদন জানিয়ে তাদের নজরদারী করছে, ইসলামিস্ট ও চেতনাবাদী লীগ গ্রুপের রিপোটিং বাহিনী দিয়ে আইডি রিপোর্ট করে লেখা থামিয়ে, তাদের বই প্রকাশিত হতে না দিয়ে, দেশের প্রতিষ্ঠিত বুদ্ধিজীবী লেখকরা সরাসরি বা মৌন বিরোধীতা করে যুক্তিবাদীতাকে কোণঠাসা করে কেমন করে আরজ আলীকে মিথ্যা প্রমাণিত করা যাবে? চ্যালেঞ্জটা গ্রহণ করুন। নাস্তিক মুক্তচিন্তার লেখকদের লেখার সেই সুযোগটা দেন যেটা সব সভ্য সমাজ দিয়ে থাকে, তখন বুঝা যাবে ‘যুক্তি’ দিয়ে কুলাবে নাকি চাপাতিতে ধার দিতে হবে?

বাংলাদেশে আমাদের বিনা বাধায়, নির্বিঘ্নে ফেইসবুকে লিখতে দিন, বই বের করতে দিন- আগামী দশ বছর পর শিক্ষক কলামিস্ট কিংবা বুদ্ধিজীবীদের মধ্যে আসিফ নজরুলদের মতো কোনো মডারেট মুসলমানদের জন্ম হবে না! বিশ বছরের মধ্যে মসজিদগুলো ফাঁকা হয়ে পড়বে। তরুণদের একটা বড় অংশ ধর্ম থেকে বিমুখ হয়ে পড়বে। যুক্তি ও মুক্তচিন্তায় তারা অভ্যস্থ হয়ে পড়বে। ইন্টারনেটে বাংলায় লেখা শুরু হবার দশ বছরের ব্লগের সীমিত ক্ষমতায় সেই উজ্জ্বল ভবিষ্যতের ঝিলিক আমাদের দেখিয়েছিলো…।


  • ৩৪৬ বার পড়া হয়েছে

পূর্ববর্তী লেখা পরবর্তী লেখা

বিঃদ্রঃ নারী'তে প্রকাশিত প্রতিটি লেখার বিষয়বস্তু, ক্রিয়া-প্রতিক্রিয়া ও মন্তব্যসমুহ সম্পূর্ণ লেখকের নিজস্ব। প্রকাশিত সকল লেখার বিষয়বস্তু ও মতামত নারী'র সম্পাদকীয় নীতির সাথে সম্পুর্নভাবে মিলে যাবে এমন নয়। লেখকের কোনো লেখার বিষয়বস্তু বা বক্তব্যের যথার্থতার আইনগত বা অন্যকোনো দায় নারী কর্তৃপক্ষ বহন করতে বাধ্য নয়। নারীতে প্রকাশিত কোনো লেখা বিনা অনুমতিতে অন্য কোথাও প্রকাশ কপিরাইট আইনের লংঘন বলে গণ্য হবে।


মন্তব্য টি

লেখক পরিচিতি

সুষুপ্ত পাঠক

বাংলা অন্তর্জালে পরিচিত "সুষুপ্ত পাঠক" একজন সমাজ সচেতন অনলাইন একটিভিস্ট ও ব্লগার।

ফেসবুকে আমরা